যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 04:53pm

|   লন্ডন - 11:53am

|   নিউইয়র্ক - 06:53am

  সর্বশেষ :

  নারী সহকর্মীদের ধর্ষণ করতে তালিকা তৈরি যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর নাবিকদের   ভাড়া করা নেতৃত্বে চলছে বিএনপি : হাছান মাহমুদ   খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছি : খন্দকার মাহবুব   কৃষক বাঁচাতে চাল আমদানি বন্ধ করতে সংসদীয় কমিটির সুপারিশ   রোজা রেখে দায়িত্ব পালনের সময় ঢাকায় ট্র্যাফিক কনস্টেবলের মৃত্যু   হামলার জেরে ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী বহিষ্কার   পাকিস্তানিদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেছে বাংলাদেশ   সততার বিরল দৃষ্টান্ত: সেতুর কাজ শেষ করেও ৭০০ কোটি টাকা ফেরত দিলো কোম্পানি   হন্ডুরাসে ব্যক্তিগত বিমান বিধ্বস্তে নিহত পাঁচ   মন্ত্রিসভায় দপ্তর পুনর্বণ্টন   যুক্তরাষ্ট্র-ইরান যুদ্ধাতঙ্ক, জরুরি বৈঠক ডেকেছেন সৌদি বাদশাহ   রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে হরিলুট: তদন্ত কমিটি গঠন   ইউরোপেও যাচ্ছে সাতক্ষীরার আম   ২৫ টাকার ইনজেকশন ১৫০০ টাকায় বিক্রি   চলমান মামলা নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা যাবে : আইনমন্ত্রী

মূল পাতা   >>   তারুণ্য

বাংলাদেশে ফাইভ স্টার হোটেল ও রিসোর্টের বিজ্ঞাপন বানালেন পান্থ রহমান

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-১০-২৭ ১৪:৩৬:১৬

নিউজ ডেস্ক: বগুড়ায় অবস্থিত মম ইন ফাইভ স্টার হোটেল ও রিসোর্টের বিজ্ঞাপন নির্মাণ করলেন পান্থ রহমান।

ইতিপূর্বে তিনি হলিউডের নামকরা ফিল্ম ইনস্টিটিউট 'নিউ ইয়র্ক ফিল্ম একাডেমি (লস এঞ্জেলেস) থেকে ফিল্ম ও মিডিয়া প্রোডাকশন বিষয়ে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। পান্থ রহমানের পরিচালনায়  নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র 'ডিসিসড' সর্বপ্রথম প্রদর্শিত হয় হলিউডের বিখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাণকারী সংস্থা 'ওয়ার্নার ব্রাদার্স ষ্টুডিও' তে। তারপর বিভিন্ন দেশের ফিল্ম ফেস্টিভালগুলোয় প্রদর্শিত হতে থাকে। এছাড়া ২০১৪ সালে পান্থ রহমান চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন পরিচালক কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায় এর সাথে 'গ্রে ঢাকা'র আউটডোর এডভার্ট, এইচএমবিআর লক, 'দ্যা ইম্পসিপাজল পোস্টারে' যেটি কান লায়ন এ ফাইনালিস্ট হিসেবে  নির্বাচিত হয়।

বড় শুটিং ইউনিট নিয়ে ঢাকা থেকে এত দূরে বগুড়ায় কাজ করতে কষ্ট হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন শুটিং এর প্রয়োজনে দূর দূরান্তে তো যেতেই হয়, এতে কষ্টের কি আছে? আর কর্তৃপক্ষ যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন। তারা বলেছেন যা সত্য তাই প্রকাশ করতে, ব্যবসায়িক স্বার্থে ভুল তথ্য উপস্থাপন না করতে এবং কোন কিছু ফলাও করে প্রচার না করতে।

মম ইনের বিজ্ঞাপনটির নির্মাণকারী সংস্থা স্টিডিফাস্ট, যার কর্ণধার সনামধন্য কথাসাহিত্যিক আফরোজা পারভীন।

তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন দায়িত্বপূর্ণ পদে কর্মজীবনের সমাপ্তি শেষ করেছেন ঠিকই কিন্তু তার লেখনী থেমে থাকেনি। তিরিশোর্ধ বছরের লেখক জীবনে তার অর্জন ৭২টি প্রকাশিত গ্রন্থ, বেশ কয়েকটি টিভি নাটক, অসংখ্য পুরস্কার এবং সম্মাননা। চাকরীজীবন শেষে এখন তার সময় কাটছে কিভাবে জানতে চাইলে তিনি জানান তিনি তার সপূর্ণ  সময় বায় করছেন শিল্প সাহিত্য নিয়েই। একদিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশবিদ্যালয় এর অধীনে জহির রায়হানের চলচ্চিত্রের উপর পিএইচডি করছেন, নিয়মিত সম্পাদনা করে চলেছেন রক্তবীজ শিল্প ও সাহিত্য ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল, আর ব্যক্তিগত লেখালেখিতো আছেই।

মম ইন করতোয়া নদীর তীরবর্তী ও বগুড়া রংপুর রোডে অবস্থিত একটি সুদৃশ্য ফাইভ ষ্টার খ্যাত হোটেল ও রিসোর্ট যাতে রয়েছে নিজস্ব হেলিপ্যাড ও হেলিকপ্টার, বিজনেস সেন্টার, কনফারেন্স রুম, মানসম্পন্ন রেস্টুরেন্ট, সুইমিং পুল ও জাকুজি, হ্রদ, অত্যাধুনিক ফোর কে প্রজেকশন ক্ষমতা সম্পন্ন মুভি থিয়েটার, প্রসারিত লবি, জিমনেশিয়াম, স্পা ও নিজস্ব হস্তশিল্পে সজ্জিত গিফট শপ।

বিজ্ঞাপনটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাদমান সামির ও সিস্কি ক্লাসেন। এছাড়াও অন্নান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন এসএম তালিম কুমার ও পিনু জামান। সাদমান সামির ইতিমধ্যে ৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এবং নিয়মিত টিভি নাটক ও বিজ্ঞাপনে অভিনয় করছেন। নেদারল্যান্ড থেকে আসা সিস্কি ক্লাসেন বাংলাদেশে একটি আন্তর্জাতিক এনজিও এর জন্য কাজ করছেন। তিনি বলেন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের পরদিনই শুটিং এর জন্য তাকে বগুড়ায় চলে আসতে হয়েছিল। মম ইনের আতিথেয়তা, বগুড়ার দই আর  মহাস্থানগড়ের সৌন্দর্য তাকে বিমোহিত করলেও রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কথা ভুলতে পারছিলেন না।  

বিজ্ঞাপনটির পরিচালনা করেছেন জহিরুল হাসান, যিনি মুম্বাই এর সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন বিষয়ে পড়ালেখা করেছেন এবং একশত এর বেশি টেলিভিশন প্রোডাকশন নির্মাণ করেছেন। তিনি মম ইন সম্পর্কে বলেন, 'মম ইন হোটেল ও রিসোর্ট এর কর্তৃপক্ষ বিশ্বাস করেন বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গে পর্যটন শিল্পের বিকাশে মম ইন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে এবং এজন্য মম ইন তার সেবামান ও সুবিধাগুলির উন্নতি সাধনে অবিরত থাকবে আমরা এই প্রত্যাশা করছি'।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৮৯৭ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত